FBCCI President Sheikh F Fahim chaired the webinar on Bangladesh’s Economic Sustainability, Recovery, Domestic Investment, FDI and OFDI in the Ongoing Covid-19 Situation. The webinar was held at the FBCCI icon in Motijheel on 7 June 2020.

চলমান কোভিড ১৯ পরিস্থিতিতে দেশের অর্থনীতিকে সচল রাখতে এফবিসিসিআই-এর ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত

চলমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক টেকসইতা, পুনঃরুদ্ধার, অভ্যন্তরীণ বিনিয়োগ, এফডিআই এবং ওএফডিআই বিষয়ক ওয়েবিনার করেছে এফবিসিসিআই। আজ ৭ জুন, রোববার মতিঝিলে এফবিসিসিআই আইকনে ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়।

গত বছর এফিবিসিসিআই যেসব কর্মসূচি নিয়ে কাজ শুরু করেছিলো চলমান বছর সেসব বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিয়ে কাজ করে যাচ্ছে। বর্তমান কোভিড ১৯ মোকাবিলায় সরকারের সঙ্গে একাত্ম হয়ে কাজ করছে এফবিসিসিআই।

এতে স্বাগত বক্তৃতা করেন এফবিসিসিআই এর সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম। আরো বক্তৃতা করবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বেসরকারি খাত ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি এবং কৃষিমন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মারসি মিয়াং টেম্বন, এফবিসিসিআই-এর সাবেক সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, একে আজাদ, আবদুল মাতলুব আহমেদ, বিডা-এর এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, বেজা’র এক্সিকিউটিভ চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী, এনবিআর এর সদস্য ফরিদ উদ্দিন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. মোহাম্মদ ফরাশ উদ্দিন, সালেহ উদ্দিন আহমেদ, এডিবি’র কান্ট্রি ডিরেক্টর মনমোহন প্রকাশ, আইডিবি’র আঞ্চিলিক ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ নাসিস বিন সুলাইমান, আইএমএফ-এর কান্ট্রি ইকোনোমিস্ট মুহাম্মদ ইমাম হুসাইন, জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সেপ্পো, এফবিসিসিআই-এর উপদেষ্টাগণ এবং পরিচালকগণ বক্তৃতা করেন।

এফবিসিসিআই এর সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম বলেন, “বর্তমান সময়ে দেশের সকল স্তরের মানুষ দৃষ্টান্তমূলক একটি মানবতা দেখিয়েছে। দেশের অর্থনীতি উন্নয়নের জন্য এফবিসিসিআই একটি উপদেষ্টা কাঠামো প্রণয়ন হিসেবে কাজ করছে। কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে বাংলাদেশের অর্থনীতিতে সম্ভাব্য প্রভাব বের করতে সরকারের বিভিন্ন উচ্চ পর্যায়ের নেতা, স্টেকহোল্ডার, অর্থনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ ও শিল্পনেতাদের সঙ্গে নিয়মিত আলোচনা করে চলছে এফবিসিসিআই। দেশের ছোট ছোট উদ্যোক্তা ও ব্যবসায়ীদের কাছে সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজ পৌঁছে দেওয়ার জন্য দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক উভয় ক্ষেত্রে এটিই প্রথম পরামর্শমূলক ব্যবস্থা। যা ব্যসায়ীদের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করছি।”

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেন, “এই মুহুর্তে আমাদের স্বাস্থ্য খাতকে সবচেয়ে বেশি শক্তিশালী করতে হবে। কারণ মানব শক্তি ছাড়া কোনো ভাবেই অর্থনীতিকে পুনরুদ্ধার করা যাবে না। সেজন্য টেলিমেডিসিন সেবাকে আরও বেশি সক্রিয় করতে আমাদের অবশ্যই স্বাস্থ্য খাতের মধ্যে আইটি ব্যবস্থাকেও একত্রিত করতে হবে। ইতোমধ্যে মহামারী মোকাবিলার জন্য প্রধানমন্ত্রী ৫ হাজার নতুন চিকিৎসক এবং ৩ হাজার টেকনিশিয়ান নিয়োগ করেছেন। এছাড়াও দেশের জেলা ভিত্তিক হাসপাতালগুলোতে আইসিইউ এর ব্যবস্থা করেছে।”

বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, “বর্তমান সময়ে আমরা অনেকটাই সংকটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। এই মহামারীর সময়ে ব্যবাসা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে ইনভেষ্টমেন্ট নিয়ে বিভিন্ন সমস্যা, রেডিমেন্টস গার্মেন্টস নিয়ে বিভিন্ন দুশ্চিন্তার মধ্যে পড়েছে দেশের সব ধরনের ব্যবসায়ীরা। এসব বিষয়ে দুশ্চিন্তা করার কোনো কারণ নেই। আমরা ইতোমধ্যেই অর্থনৈতিক চাকা সচল করে ঘুরে দাঁড়িয়েছি। এছাড়া আসন্ন বাজেটেও ব্যাপক পরিবর্তন আনা হচ্ছে। আমরা আশা করছি খুব শীঘ্রই সকল সংকট কাটিয়ে দেশকে আবার উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবো।”

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেন, “দেশের এই মহামারীর সময়ে অর্থনৈতিক চাকা সচল রেখে দেশের স্বাস্থ্য খাত, শিল্প খাতকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী। এমন সময়েও আমাদের অনেক গুলো দূযোগ মোকাবিলা করতে হয়েছে । তার পরেও আমাদের অর্থনৈতিক দিক ঠিক রয়েছে। তবে করোনা বিশ্বের অর্থনৈতিক অবস্থার ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে। এই পরিবর্তনকে কাজে লাগিয়ে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। তার জন্য আমাদের স্বল্প ও র্দীঘ পরিকল্পনা করতে হবে। এছড়াও আমাদের কিছু জায়গায় স্বল্পতা রয়েছে সেই বিষয়গুলোর উপর নজর হবে এবং শিল্প খাতের জন্য ভ্যাট ও ট্যাক্স কমানোর বিষয়েও আমরা আলোচনা করব।”

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন বলেন, “গত কয়েক বছরের বাজেট আমাদের চরম দারিদ্র্য সীমা উত্তরণে সাহায্য করলেও, করোনা আবারো সেই অবস্থানে ফিরিয়ে নিয়েছে। সরকার ঘোষিত বিভিন্ন প্রণোদনা প্যাকেজগুলো যদি কার্যকর হয়, তাহলে করোনা মহামারীর ক্ষতি আমরা শীঘ্রই কাটিয়ে উঠতে পারব। এছাড়া দেশের কৃষি খাতের মতো গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলোকে কাজে লাগাতে হবে। তথ্য প্রযুক্তির যথাযথ ব্যবহারের মাধ্যমে আমরা আমাদের রপ্তানি খাতকে আরও বৈচিত্র্যময় করে তুলতে পারি এবং সেইসাথে বিদেশি বিনিয়োগকারীদেরও আকৃষ্ট করা সম্ভব।”

কৃষি মন্ত্রী ড. মো: আব্দুর রাজ্জাক বলেন, “কৃষি পণ্য উৎপাদনের দিক দিয়ে আমরা স্বয়ংসম্পূর্ণ। মহামারীর সময়ে দেশে যাতে খাদ্যের সংকট না পরে সেজন্য করোনা আসার সাথে সাথে আমাদের কৃষকরা প্রয়োজনীয় ভোগ্যপণ্য উদ্বৃত্ত উৎপাদন করে আসছে। এছাড়া জনগণের ক্রয় ক্ষমতা হ্রাস পাওয়ার সাথে সাথে আমাদের রফতানির খাতের দিকেও নজর দিতে হবে। কারণ অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য এখন কৃষি পণ্য উৎপাদনকে কাজে লাগাতে হবে। সেই সুযোগটা কাজে লাগানোর সঠিক সময় হচ্ছে এই করোনা কাল।”

বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর মারসি মিয়াং টেম্বন বলেন, “সাপ্লাই চেইন ফাইনান্স এর সুবিধার জন্য প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া সরকারের দেওয়া প্রণোদনা প্যাকেজটি সঠিক ভাবে ব্যবসায়ীদের কাছে পৌঁছে দেওয়া এবং দেশের বাণিজ্য খাতটিকেও উন্মুক্ত রাখা জরুরী। এই সময়ে আমাদের বিশ্বব্যাংকের সাথে সম্পর্কও বাড়ানো দরকার। কারণ এই মুহুর্তে স্বাস্থ্যসেবা খাতে আর্থিক সহায়তা, অর্থনৈতিক অঞ্চলে জন্য আর্থিক সহায়তা প্রক্রিয়াকরণসহ আরো অনেক কিছু বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের সহায়তা প্রয়োজন।”

বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর সালাউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, সরকারের প্রণোদনা প্যাকেজটি দেশের ব্যাংকিং খাতের উপর নির্ভরশীল। যার কারণে ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি বিষয়ে সমস্যা দেখা দিয়েছে। প্রণোদনা প্যাকেজের যথাযথ ভাবে বাস্তবায়ন করতে ব্যাংকিং খাতের ফাঁকফুকরের দিকে আমাদের গুরুত্ব দিতে হবে। এজন্য অবশ্যই স্বল্প মেয়াদের পরিকল্পনা থাকতে হবে। পাশাপাশি আসন্ন বাজেট ও পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার জন্য দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনাও প্রণয়ন করতে হবে। এর জন্য কিছুটা সময় লাগলেও আমাদের এই বিষয়ে ধৈর্য ধরতে হবে।”

এফবিসি্আই-এর পরিচালক সুজিব রঞ্জন দাস বলেন, বিরাজমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে এফসিসিসিআই-এর সভাপতির নেতৃত্বে আমরা বেশকিছু সামাজিক উদ্যোগ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করেছি। কোভিড-১৯ মহামারী শুরু হওয়ার পর পরই ২ লক্ষ মাস্ক, ২০ হাজার পিপিই, ৩০ হাজার গ্লোবস ও ২০ হাজার ফেস শিল্ড সংগ্রহ করে দেশব্যাপী হাসপাতাল ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে বিতরণের বিশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়।

FBCCI’s webinar held to keep the country’s economy afloat in the ongoing Covid 19 situation

The FBCCI has conducted a webinar on Bangladesh’s economic sustainability, recovery, domestic investment, FDI and OFDI in the ongoing Covid-19 situation. The webinar was held at the FBCCI icon in Motijheel on Sunday..

FBCCI President Sheikh Fazle Fahim delivered the welcome address. Hon’ble Prime Minister’s Adviser on Private Sector and Investment Salman F Rahman, Industries Minister Nurul Majid Mahmud Humayun, Foreign Minister AK Abdul Momen, Commerce Minister Tipu Munshi and Agriculture Minister Dr. Md. Abdur Razzak delivered speech. Among others World Bank Country Director Marcy Myang Tembon, former FBCCI President Shafiul Islam Mohiuddin, AK Azad, Abdul Matlub Ahmed, BIDA Executive Chairman Sirajul Islam, BEZA Executive Chairman Paban Chowdhury, NBR Member Farid Uddin, Former governor of BB Mohammad Farash Uddin, Saleh Uddin Ahmed, ADB Country Director Manmohan Prakash, IDB Regional Manager Mohammad Nassis bin Sulaiman, IMF Country Economist Muhammad Imam Hussain, UN Resident Coordinator Mia Seppo, FBCCI Director and advisers were delivered speech on webinar.

The FBCCI is working hard on the programs it started last year. The FBCCI is working in tandem with the government to tackle the current Covid 19.

A.K. Abdul Momen, the Foreign Minister of Bangladesh stated, “While our budget in the last few years has been helping us to elevate the nation from extreme poverty, the advent of Corona has pushed us back from our trajectory. If the stimulus package designed by the government is distributed efficiently, we will be able to cope up with any obstacles due to the advent of the pandemic. Additionally, we have to channel our resources in the most potent sectors of the country such as that of the agriculture sector. With the integration of IT into the sector we can diversify our export sector and at the same time attract FDIs.”

Salman F Rahman the Private Sector Industry and Investment Adviser to Honorable Prime Minister stated, “ Before everything else, we have to strengthen our health sector first. The economy cannot be restored without human capital. We must integrate IT within the health sector to enable Telemedicine. The Prime Minister has already appointed 5000 doctors and 3000 technicians and empowered district hospitals to have ICUs, to face the pandemic head-on.”

Mohammad Abdur Razzaque, the Minister of Agriculture conveyed, “We are a self-sufficient country in terms of agricultural goods. The agriculture sector has been producing a surplus of consumable goods, even with the advent of Corona. With buying power of the masses taking a hit, we should look into utilizing the sector with the surplus of goods, in diversifying our export basket.”

Mercy Miyang Tembon, the World Bank’s Country Director for Bangladesh stated, “ It is crucial to enhance the use of technology to facilitate supply chain finance. Additionally, the stimulus package transition should be transparent and it is crucial to keep trade open. Our engagement of the World Bank has been crucial at this point by facilitating liquidity to support millions in accessing healthcare, processing financial support to economical zones, and much more. Cooperation is crucial, as we are working with Bangladesh Bank to create a kind of risk-sharing, as most policies are dependent on financial institutions.

Sheikh Fazle Fahim, the President of FBCCI on the webinar conveyed, “In the present context people from all levels have demonstrated exemplary humanity. FBCCI has been working to formulate an advisory framework, so discussions with Government leadership stakeholders, economists, academics, and industry leaders are ongoing to identify the potential impact of COVID-19 on Bangladesh’s economy. This is hopefully the first of many consultative engagements between stakeholders- both domestic and international; in helping entrepreneurs in accessing the government’s stimulus package.”

Commerce Minister Tipu Munshi said, “With the advent of the pandemic, traders in the country have faced investment issues in the field of trade and commerce in addition to concerns surrounding the ready-made garments (RMG) sector. But we should not worry much as we have been successful in sustaining the economy. Besides, major changes are being made in the upcoming budget. We hope that we will soon be able to overcome this crisis and move towards development again.

Nurul Majid Mahmud Humayun, the Minister of Industries said, “The Prime Minister is taking the country’s health sector and industrial sector forward by keeping the economic wheel of the nation running amidst the pandemic. Corona has brought about a massive change in world economics. Bangladesh needs to take this change forward. We need to have both short and long term goals. We will also look into the shortcomings in some areas and discuss ways to reduce VAT and taxes for the industrial sector.

Salahuddin Ahmed the former governor of Bangladesh Bank said, “The stimulus package of the government is highly dependent on the banking sector of the country which already has a number of ranging issues. To ensure the proper implementation of the stimulus package we need to focus on those gaps in the banking sector. We must have short term plans as well as formulate long term plans through the upcoming budget and five-year plans. This is going to take time and we should be patient.”

Webinar Video Link::: https://web.facebook.com/watch/live/?v=2647537782234200&ref=watch_permalink

  • Our Location
  • The Federation of Bangladesh Chambers of Commerce and Industry (FBCCI)
    60, Motijheel C/A, Dhaka, Bangladesh.
    Tel: 88-02-9560102-3, 9560482
    Fax: 88-02-9567621
    E-mail: fbcci@bol-online.com

  • Our Map
  • Subscribe To Our Newsletter